1. chitrabani24@gmail.com : admin :
  2. qwsd@postcards-hawaii.com : leannetolmer375 :
  3. herokkazi6@gmail.com : mohidul :
  4. saddamuddinraj@gmail.com : Saddam Uddin Raj : Saddam Uddin Raj
  5. yusuf@ataberkestate.com : TimothyGuete :
এক নজরে জেনে নেই পদ্মা সেতু সম্পর্কে » Chitrabani 24 | online news paper
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৮:৫৪ পূর্বাহ্ন

এক নজরে জেনে নেই পদ্মা সেতু সম্পর্কে

  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৪ জুন, ২০২২
  • ২৯৬ জন পাঠক দেখেছে

ডেস্ক রিপোর্ট:

দৈর্ঘ্য: ৬.১৫ কিলোমিটার।
স্প্যান : ৪১ টি; প্রতিটির দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার।
খুঁটি বা পিয়ার : ৪২টি।
প্রতি পিয়ারে পাইল: ০৬টি করে (অর্থাৎ একটি খুঁটির নিচে ছয়টি করে পাইল আছে)।

মোট পাইল: নদীতে ২৪০ টি বাইরে ৩২টি।
পাইলের ব্যাস: ৩ মিটার।
প্রতিটির গভীরতা : ১২৮ মিটার।

রোড ভায়াডাক্ট : ৩.১৪৮ কিলোমিটার, দুই পাড়ে।
রেল ভায়াডাক্ট : ৫৩২ মিটার।
অ্যাপ্রোচ রোড: ১২.১১৭ কিলোমিটার।

নদী শাসন ১৪ কিলোমিটার; মাওয়া ১.৬ কিমি এবং জাজিরা ১২.৪ কিমি।
সেতুর প্রস্থ : ২২ মিটার; দুই পাশে ২.৫ মিটার করে কংক্রিট ডেক।
যানবাহন লেন: ৪ (দুই পাশে আড়াই মিটার করে সার্ভিস লেন থাকবে)।

রেললাইন: নিচের তলায়; সিঙ্গেল লাইন ডুয়েল গেজ।
ডেকের উচ্চতা: ১৩.৬ মিটার।
নেভিগেশন ক্লিয়ারেন্স : ১৮.৩ মিটার (অর্থাৎ পানি থেকে উচ্চতা ৬০ মিটার)

ব্যয়:
মূল সেতু: ১২,১৩৩.৪ কোটি টাকা।
নদী শাসন: ৯৪০০ কোটি টাকা।
জমি অধিগ্রহণ: ২৬৯৮.৭ কোটি টাকা।

এপ্রোচ রোড: ১৯০৭.৭ কোটি টাকা।
পুনর্বাসন: ১৫১৫ কোটি টাকা।
পরামর্শক : ৬৭৮.৪ কোটি টাকা।

পরিবেশ : ১২৯ কোটি টাকা।
অন্যান্য : ১৭৩১.২ কোটি টাকা।
সর্বমোট ব্যয়: ৩০,১৯৪.৪ কোটি টাকা।

পদ্মার রেকর্ড:
• পদ্মা সেতুর মতো এতো বড় ব্যাস এবং গভীরতা পাইল স্থাপন করা হয়নি বিশ্বের কোনো সেতুতেই। ব্যাস ৩ মিটার এবং গভীরতা ১২২ মিটার।

• পদ্মা সেতুকে ভূমিকম্প থেকে রক্ষায় ১০ হাজার টন ক্ষমতার ফ্রিকশন পেন্ডুলাম বিয়ারিং স্থাপন করা হয়েছে। যা বিশ্বে এই প্রথম।

• আল্ট্রা ফাইন সিমেন্ট ব্যবহৃত হচ্ছে এই প্রকল্পে। যা সাধারণত এ ধরনের সেতুতে হয়ে থাকে না। এই সিমেন্ট আমদানি করা হয়েছে অস্ট্রেলিয়া থেকে। এছাড়া, নদীর বুকে সেতু নির্মাণের জন্য এতো টাকার চুক্তি হয়নি এর আগে।

• পদ্মা সেতুতে ব্যবহৃত পাথরের প্রতিটির গড় ওজন এক টন করে; যা আনা হয়েছে ভারতের ঝাড়খন্ড থেকে।

• পদ্মা সেতুর পাইলিংয়ের জন্য যে হ্যামার ব্যবহৃত হয়েছে, তা শুধু এই প্রকল্পের জন্য ডিজাইন করে বানানো। এতো বেশি শক্তির হ্যামার আগে কখনো, কোথাও ব্যবহৃত হয়নি। হ্যামারের চাপ দেয়ার ক্ষমতা ছিল ২৫০০০ টন।

• স্টিলের স্প্যান তোলার জন্য ব্যবহৃত ক্রেনের ক্ষমতা ছিল ৩২০০ টন।

• নদী শাসনের জন্য ব্লক ব্যবহৃত হয়েছে ১ কোটি ৩৩ লাখ পিসের ওপরে এবং ড্রেজিং করা হয়েছে ৫ কোটি ঘনমিটার।

• ভুপেন হাজারিকা সেতুর পর ইন্দো-গাঙ্গেয় তলে নির্মিত এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম সেতু। গঙ্গার ওপর নির্মিত সবচেয়ে বড় সেতু; স্প্যান ও সার্বিক দৈর্ঘ্যের বিচারে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর

© All rights reserved © 2022 | Chitrabani 24
Theme Customized By BreakingNews